বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ চুরির দায়ে ব্যাংক কর্মকর্তার কারাদণ্ড

বাংলাদেশ ব্যাংকে সাইবার চুরির দায়ে ফিলিপিন্সের সাবেক ব্যাংক ব্যবস্থাপক মাইয়া দেগুইতোকে ৩২ থেকে ৫৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। সেইসঙ্গে তাকে ১০ কোটি ৯০ লাখ ডলার জরিমানাও করা হয়। বৃহস্পতিবার ফিলিপিন্সের আদালত সাবেক ওই ব্যাংক ব্যবস্থাপককে মানি লন্ডারিংয়ের ৮টি অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে, খবর রয়টার্সের।

বিশ্বের অন্যতম এই সাইবার চুরির ঘটনায় এই প্রথম কারও বিরুদ্ধে রায় দেয়া হল। প্রায় তিন বছর আগে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি যায়। সেই অর্থচুরিতে সম্পৃক্ততার দায় প্রমাণ হওয়ায় ম্যানিলা-ভিত্তিক রিজিওনাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশন (আরসিবিসি) এর প্রাক্তন শাখা ব্যবস্থাপক মাইয়া দিগুইতোকে কারাদণ্ড ও জরিমানা করে ফিলিপিন্সের আঞ্চলিক আদালত। মানি লন্ডারিংয়ের প্রতিটি অভিযোগে তাকে চার থেকে সাত বছরের জেল দেয়া হয়েছে।

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে অজ্ঞাতরা সুইফট পেমেন্ট পদ্ধতিতে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে ওই বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেয়। পরে ওই অর্থ ম্যানিলার আরসিবিসি শাখার অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়। ওই শাখার প্রধান হিসেবেই দায়িত্ব পালন করতেন দেগুইতো। পরে সেই অর্থ ফিলিপিন্সের কাসিনোতে যায়। এরপর সেই অর্থের কোন হদিশ পাওয়া যায়নি। দেগুইতো এই অবৈধ ব্যাংক লেনদেন সহজে বাস্তবায়ন ও সমন্বয়ের জড়িত ছিল বলে দাবি আদালতের। তবে আদালতের সামনে মিস দেগুইতো জানিয়েছেন, এই অর্থ লেনদেনের পেছনে তার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। তার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা।

শেয়ার করুন