বাংলাদেশের কাছে অস্ত্র বিক্রির প্রস্তাব যুক্তরাষ্ট্রের

বাংলাদেশের কাছে সামরিক অস্ত্র বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠকে এমন প্রস্তাব দেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর্ল মিলার। একই সঙ্গে দুই দেশের সম্পর্ক শক্তিশালী করাসহ ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশলে যোগ দেয়ার বিষয়েও প্রস্তাব করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

বৈঠক শেষে মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর্ল মিলার বলেন, বৈঠকে গণতন্ত্র ও সুশাসনের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক অংশিদারিত্ব, সামরিক অস্ত্র বিক্রি, ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশল, দুই দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপনসহ কীভাবে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করা যায়, এগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে যুক্তরাষ্ট্র সফরের আমন্ত্রণ জানানোর কথা জানিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, এটা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে প্রথম বৈঠক। শুধু পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে নয় বরং সব সরকারি কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করতে সামনের দিনগুলোতে এ ভবনে আরও অনেকবার আমাকে আসতে দেখবেন।

পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন। অস্ত্র কেনার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র তুলেছে। তারা মার্কিন থেকে অস্ত্র কেনার কথা বলেছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশের কোনো আপত্তি নেই। তবে মার্কিনিদের পণ্য বেশ দামি। আমরা এ বিষয়ে একটু সুলভমূল্যের দিকে তাকাই।

ইন্দো প্যাসিফিক কৌশল প্রসঙ্গে আবদুল মোমেন বলেন, ইন্দো প্যাসিফিক কৌশল নিয়ে আলোচনা করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে আমাদের কোনো আপত্তি নেই।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ব্যবসা বাংলাদেশের খুব ভালো। তাদের বিনিয়োগও ভালো। এর মধ্যে জ্বালানি খাতে সহযোগিতা তো খুবই ভালো। আমরা প্রস্তাব করেছি এর বাইরে অন্য খাতে বিনিয়োগের জন্য। উইন উইন পরিস্থিতি থেকে বিনিয়োগের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে চাই ২০২১ সালের মধ্যে। এখানে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে।

শেয়ার করুন