কোর্ট থেকে ফেরার পথে রাজনের উপর হামলা

মৌলভীবাজার কোর্ট থেকে মামলার হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পৌর শহরের সুলতানপুর পয়েন্টে সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলায় রাজন আহমদ নামের এক যুবক গুরুত্বর আহত হয়েছেন। এঘটনায় পুলিশ মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসকের গাড়ির ড্রাইভারসহ ৩ জনকে আটক করেছে। আটককৃত হল ফরহাদ, রাজু ও জেলা প্রশাসকের গাড়ির ড্রাইভার সুমন। পরে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জেলা প্রশাসকের গাড়ির ড্রাইভার সুমন ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত না থাকায় তাকে ছেড়ে দিয়েছে।
আহত রাজন জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার রাজাপুর বড় বাড়ির বাসিন্দা। তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত রাজনের ভাই লোকমান জানান, প্রতিবেশি উরপু মিয়া (৫৫) সাবেক ইউপি নির্বাচনে তার পক্ষের ইউপি সদস্যকে ভোট না দেওয়ার কারণে তাদের সাথে বিরুধ চলে এবং শাহিন ভিসা দেয়ার কথা বলে আমার কাছ থেকে নগদ ৩ লক্ষ টাকা নেন। পরবর্তীতে ভিসা না দেয়ায় আমার ভাই শওকত বাদী হয়ে কাতার প্রবাসী শাহিন ও তার স্ত্রী আলেয়া বেগমকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে প্রবাসী শাহিনের স্ত্রী আলেয়া বেগম আমরা ৪ ভাইকে আসামী করে পাল্টা আরেকটি মামলা করেন। ওই মামলায় রোববার মৌলভীবাজার কোর্টে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পৌর শহরের শাহ মোস্তফা রোডের সুলতানপুর পয়েন্টে পৌছা মাত্রই পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা ৪/৫ জন লোক আমাদের সিএনজি আটকিয়ে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে অতর্কিত হামলা করেন। এসময় রাজনকে লক্ষ করে সন্ত্রাসীরা দা দিয়ে কুপ দিতে চাইলে সে বাম হাত দিয়ে আটকায়। এতে তার বাম হাতের কব্জির উপরে কেটে যায়। পরবর্তীতে তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ডাক্তাররা তাকে সিলেট ওসমানি মেডিকেলে রেফার করে দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ৩ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
এবিষয়ে মৌলভীবাজা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, জেলা প্রশাসকের ড্রাইভার সুমন তার একজন বন্ধুকে মোটর সাইকেলে নিয়ে আসছিল। কিন্তু সে জানতনা যে, তার বন্ধু কি জন্য এসেছে। আমরা তদন্ত করে দেখেছি সুমন এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত নয়। এজন্য জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
এঘটনায় আহত রাজন মিয়ার বড় ভাই শওকত আহমেদ আদী হয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন যাহার মামলা নাম্বার ১০৭/১১৮/১১৭(সি)।

শেয়ার করুন